""
Thursday, October 6, 2022
Homeদেশের দশদিকCOP26: জলবায়ুর পরিবর্তন রোধ করা না গেলে বিশ্ব বসবাসের অযোগ্য হয়ে উঠবে:...

Latest Posts

COP26: জলবায়ুর পরিবর্তন রোধ করা না গেলে বিশ্ব বসবাসের অযোগ্য হয়ে উঠবে: মোদি

সিওপি-২৬-এর মঞ্চে গোটা বিশ্বকে চমকে দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি

- Advertisement -

News Desk: গ্লাসগোর বিশ্ব জলবায়ু সম্মেলন সিওপি-২৬-এর (COP26) মঞ্চে গোটা বিশ্বকে চমকে দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi)। জলবায়ু সম্মেলনের মঞ্চে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি প্রতিশ্রুতি দিলেন, ২০৭০ সালের মধ্যে ভারতে কার্বন নির্গমনের পরিমাণ শূন্যের পৌছবে। মোদি যেমন জোর গলায় এই কথা বলেছেন, এই সম্মেলনে অন্য কোন দেশের রাষ্ট্রনেতা তা বলতে পারেননি।

এদিন প্রধানমন্ত্রী তাঁর ভাষণে বলেন জলবায়ু পরিবর্তন ক্রমশই গোটা দুনিয়ার কাছে ভয়ঙ্কর এক আতঙ্কের কারণ হয়ে উঠছে। বাস্তব অভিজ্ঞতা বলছে, বিশ্বের কোনও দেশই জলবায়ুর পরিবর্তনের কুপ্রভাব থেকে নিজেদের রক্ষা করতে পারেনি। সে যত ধনী দেশ হোক বা গরিব। কেউই জলবায়ু পরিবর্তনের নেতিবাচক প্রভাব থেকে নিজেকে বাঁচাতে পারেনি। মানুষের জীবনযাপনের ওপর বড় ধরনের প্রভাব ফেলছে জলবায়ু পরিবর্তন। তাই জলবায়ুর উন্নতি সাধনের জন্য মানুষের জীবন যাপনে বদল আনতে পারে এমন পাঁচ অমৃত তত্ত্বের সন্ধান দিয়েছেন মোদি।

- Advertisement -

প্রধানমন্ত্রী স্পষ্ট জানিয়েছেন, আমরা যদি জলবায়ুকে রক্ষা করতে না পারি তবে আগামী দিন এই বিশ্ব মানুষের বসবাসের অযোগ্য হয়ে উঠবে। স্বাভাবিকভাবেই প্রধানমন্ত্রী মোদির এই ঘোষণায় বিশ্বের অন্য দেশগুলোর প্রতিনিধিরা কিছুটা অবাক হয়ে যান। মোদির এই বার্তা পশ্চিমী দেশ ও চিনের ক্ষেত্রে বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছে কূটনৈতিক মহল। কারণ এই দেশগুলি নিজেদের স্বার্থের কথা মাথায় রেখে বিশ্ব উষ্ণায়ন নিয়ন্ত্রণ করতে কোনও রকম পদক্ষেপ করেনি।

গ্লাসগোর এই সম্মেলনে মোদি স্পষ্ট জানিয়ে দেন, পরিবেশকে অবশ্যই দূষণমুক্ত রাখতে হবে। বিশ্ব উষ্ণায়ন বাড়ছে। এটা কোনও একটি দেশের উদ্বেগের বিষয় নয়। গোটা মানব জাতি ও সভ্যতার ক্ষেত্রেই ভয়ঙ্কর আকার ধারণ করবে বিশ্ব উষ্ণায়ন। দূষণ কমিয়ে বিশ্ব উষ্ণায়ন নিয়ন্ত্রণে বিশ্বের প্রতিটি দেশকে একযোগে পদক্ষেপ করতে হবে।

লবায়ু সম্মেলনের এই মঞ্চে ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনকে ভারতে আসার আমন্ত্রণ জানান মোদি। মোদির আমন্ত্রণে সাড়া দিয়ে জনসন জানিয়েছেন, করোনা পরিস্থিতি কিছুটা নিয়ন্ত্রণে এলে যত শীঘ্র সম্ভব তিনি ভারত সফরে আসবেন। গ্লাসগোতে বিশ্ব জলবায়ু সম্মেলনে একই মঞ্চে হাজির ছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও জনসন। ওই বৈঠক চলাকালীন জনসনকে ভারতে আসার আমন্ত্রণ জানান মোদি।

মঙ্গলবার বিদেশ সচিব হর্ষবর্ধন শ্রিংলা বলেছেন, গ্লাসগোর ওই সম্মেলনে ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে পুনর্নবীকরণযোগ্য শক্তি, গ্রিন হাউস গ্যাস নির্গমন বন্ধ, অর্থনীতি, প্রতিরক্ষা, সন্ত্রাসবাদের মতো বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কথা বলেছেন মোদি। দুই দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরও মজবুত করার ওপর জোর দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এসব বিষয় নিয়ে আরও বিস্তারিত আলোচনা করার জন্যই জনসনকে ভারতে আসার আমন্ত্রণ জানিয়েছেন মোদি।

উল্লেখ্য, চলতি বছরে সাধারণতন্ত্র দিবসের প্যারেডে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা ছিল জনসনের। কিন্তু করোনাজনিত কারণে সেই জনসনের সেই সফর বাতিল হয়। শেষ পর্যন্ত মোদির আমন্ত্রণে ভারতে আসার কথা জানিয়ে এক ইতিবাচক বার্তা দিলেন জনসন।

- Advertisement -

Video News

Top News Headlines

Latest Posts

Don't Miss