ট্রেকিং করতে গিয়ে নিখোঁজ ৭ বাঙালি-সহ ১১ জন পর্যটক, উদ্বেগ ছড়াচ্ছে কলকাতায়

568
Eleven tourists went missing while trekking in Himachal Pradesh.

নিউজ ডেস্ক: হিমাচলপ্রদেশে ট্রেকিং করতে গিয়ে নিখোঁজ হয়ে গেলেন ১১ জন পর্যটক। যার মধ্যে ৭ জন বাঙালি। নিখোঁজ হওয়া এই ১১ জন পর্যটক প্রত্যেকেই চলতি মাসের ১১ তারিখে উত্তরাখণ্ডের হর্ষিল থেকে রওনা দিয়েছিলেন। ১৯ অক্টোবর তাঁদের হিমাচল প্রদেশের ছিটকুলে পৌঁছানোর কথা ছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তাঁরা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে সেখানে পৌছতে পারেননি। তারা এই মুহূর্তে কোথায় আছেন তাও জানা যাচ্ছে না।

আয়োজকরা ইতিমধ্যেই উত্তরকাশী জেলা বিপর্যয় মোকাবিলা দফতরকে বিষয়টি জানিয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই ট্রেকিং টিমের সকল সদস্যকে খোঁজার কাজ শুরু করেছে আইটিবিপি জওয়ানরা।

ট্রেকিং এর আয়োজক সংস্থার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ১১ অক্টোবর উত্তরাখণ্ডের হর্ষিল থেকে ১১ সদস্যের দলটি ছিটকুলের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছিল। ওই পর্যটক দলের ৭ জন কলকাতার বাসিন্দা। নিখোঁজ বাঙালি পর্যটকের মধ্যে রয়েছেন রিচার্ড মন্ডল, মিঠুন দাঁড়ি, সুখেন মাঝি, তন্ময় তিওয়ারি, সাবিয়ান দাস, সৌরভ ঘোষ ও বিকাশ মাকাল। এছাড়াও ওই ট্রেকারদের দলে উত্তরকাশীর তিনজন রাঁধুনি ছিলেন। তাঁদের নাম উপেন্দ্র, দেবেন্দ্র ও জ্ঞানচন্দ্র। ১১ অক্টোবর রওনা দেওয়ার পর তাঁরা কেউই ছিটকুলে গিয়ে পৌঁছয়নি।

উত্তরাখণ্ডের ডিজিপি অশোককুমার সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে জানিয়েছেন, খুব সম্ভবত ওই ট্রেকারদের দলটি উত্তরাখান্ড ও হিমাচলের মধ্যবর্তী লামখাগা পাশের কাছে আটকে রয়েছেন। আবহাওয়ার একটু উন্নতি হলে হেলিকপ্টারে তাদের খোঁজার কাজ শুরু হবে। ইতিমধ্যেই জেলা পুলিশ ও বন বিভাগের কর্মীরা ওই পর্যটকদের খোঁজে তল্লাশি অভিযান চালাচ্ছেন।

তবে এখনও পর্যন্ত ওই পর্যটকদের হদিশ মেলেনি। আবহাওয়া খারাপ থাকায় বেশিরভাগ এলাকাতেই বিদ্যুৎ ও ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন। সে কারণে ওই ট্রেকারদের কাছে মোবাইল ফোন থাকলেও তা কোন কাজ করছে না। সে কারণে তাদের কোনও খবর মিলছে না। চলতি মাসের ১৭ তারিখ থেকে একটানা প্রবল বৃষ্টি হয়ে চলেছে উত্তরাখণ্ড ও হিমাচল প্রদেশে। মেঘভাঙা প্রবল বৃষ্টির কারণে দুই রাজ্যই বন্যা কবলিত হয়ে পড়েছে। সা

ধারনত অক্টোবর মাসের প্রথম থেকেই নভেম্বর মাসের শেষ পর্যন্ত উত্তরাখণ্ড ও হিমাচল প্রদেশে ট্রেকিংয়ের জন্য প্রচুর পর্যটক আসেন। কিন্তু আবহাওয়াজনিত পরিস্থিতি অত্যন্ত খারাপ হওয়ায় পর্যটকরা অনেকেই হিমাচলে আসতে পারেননি। যারা এসেছেন তাঁরাও এভাবে আটকে যাওয়ায় অনেকেই প্রমাদ গুনছেন। ইতিমধ্যেই কলকাতার বাঙালি পর্যটকদের বাড়িতে তৈরি হয়েছে উদ্বেগ।

তাঁরা সকলেই উত্তরাখণ্ড প্রশাসনের কাছে উদ্ধারের ব্যাপারে খোঁজখবর করছেন। কিন্তু এখনও পর্যন্ত কোনও আলোর দিশা দেখা যায়নি। পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তরফেও উত্তরাখণ্ড ও হিমাচল প্রদেশ সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হচ্ছে। বাঙালি পর্যটকদের যাতে দ্রুত এবং নিরাপদে উদ্ধার করা যায় সে বিষয়ে সব ধরনের ব্যবস্থা নিতে হিমাচল প্রদেশ সরকারকে অনুরোধ জানিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার।