Bihar: দুধেল গাই ছিল রেল, তাকে বেচে দিয়েছে মোদী, ময়দানে চিৎকার লালুর

429
lalu-prasad-yadav

News Desk: চুটকুলা আন্দাজ, মুচকি হাসির সেই লালু ফের ময়দানে, রাজনীতি সরগরম। বিহারে ফের আবির্ভাব লালুপ্রসাদ যাদবের। রাজনৈতিক মঞ্চে পশুখাদ্য কেলেঙ্কারিতে জেল খাটা আরজেডি প্রধানের রঙ্গিলা এন্ট্রিতে মাতোয়ারা বিহার ও পুরো দেশ।

বিহারে মাত্র দুটি আসনে উপনির্বাচন। সেটা ঘিরেই বিহার তপ্ত হয়ে গিয়েছে। লালুপ্রসাদ যাদব বিশেষ আইনি প্রক্রিয়ায় জেল থেকে বিহারে ফিরেছেন। উপনির্বাচন প্রচারে নেমেই প্রধানমন্ত্রী মোদীকে কটাক্ষ করে লালুপ্রসাদের কটাক্ষ, দেশের রেল ব্যবস্থা ছিল দুধেল গাই। তাকেই বেচে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। প্রবল আলোড়ন পড়েছে এই ভাষণে।

ভাষণে লালুপ্রসাদ বলেন, তিনি যখন রেলমন্ত্রী ছিলেন এক টাকা ভাড়া বাড়িয়ে দেননি। এখন রেল আর সাধারণ মানুষের নয়।

পশুখাদ্য কেলেঙ্কারির মামলায় লালুপ্রসাদ যাদব ঝাড়খণ্ডের রাঁচি জেলে বন্দি ছিলেন। অসুস্থ হয়ে দিল্লির এইমসে চিকিৎসাধীন হন। সেখান থেকেই বিহারে ফের এন্ট্রি নিলেন। আসন্ন ছট পুজোর আগে রাজনৈতিক মহলে চমক লেগেছে লালুপ্রসাদের এন্ট্রিতে।

বিহারের তারাপুর কেন্দ্রের উপনির্বাচনে প্রচার করলেন লালুপ্রসাদ যাদব। সেখানেই তিনি মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমারকে ফের কটাক্ষ করেন। লালুপ্রসাদ বলেন, গুলি করে মারব না তোমাকে। তুমি তো এমনিই মরে যাবে। আগেই লালুপ্রসাদের আগমন ও তার সরকারের সময় ‘জঙ্গলরাজ’ পরিস্থিতি টেনে কটাক্ষ করে নীতীশ কুমার বলেছিলেন, ও আমাকে গুলি করে মারতে পারে। নীতীশের বিস্ফোরক মন্তব্যের জবাব চুটকি দিয়ে উড়িয়েছেন লালুপ্রসাদ। পুরনো জোট প্রসঙ্গ টেনে লালু বলেছেন, আমি নীতীশকে মুখ্যমন্ত্রী করেছিলাম। ও এখন মোদীর কোলে দোল খাচ্ছে।

নীতীশ কুমারের জেডিইউ ও বিজেপি জোট বিহারে ক্ষমতাসীন। গত নির্বাচনে তারা সরকার ধরে রাখে। আরজেডির মহাজোট হয়েছে বিরোধী। ঝাড়খণ্ডের মতো বিহারেও লালুপ্রসাদ যাদব ছিলেন মহাজোটের মুখিয়া। তবে ঝাড়খণ্ডে তিনি সফল হলেও নিজ রাজ্য বিহারে পাশ করতে পারেননি। নির্বাচনের সময় জামিন নিয়ে বিস্তর জট কাটিয়েও প্রচারে আসতে পারেননি। আইনি প্রক্রিয়ায় বিহারে এসেই লালপ্রসাদ শুরু করেছেন তাঁর পুরনো আন্দাজের চুটকি রাজনীতি।