""
Friday, October 7, 2022
Homeদেশের দশদিকচলতি বছর থেকেই সাংসদদের দেওয়া হবে এমপি ল্যাডের টাকা, জানাল কেন্দ্র

Latest Posts

চলতি বছর থেকেই সাংসদদের দেওয়া হবে এমপি ল্যাডের টাকা, জানাল কেন্দ্র

করোনাজনিত কারণে ২০১৯ সালের এপ্রিল মাসে এমপি ল্যাডের টাকা দেওয়া বন্ধ ছিল

- Advertisement -

News Desk, New Delhi: চলতি অর্থবছর থেকেই ফের সাংসদের এলাকার উন্নয়নের জন্য এলাকা উন্নয়ন তহবিল বা এমপি ল্যাডের (MP LAD) টাকা দেওয়া হবে। বুধবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির (,narendra modi) পৌরহিত্যে বসেছিল কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার বৈঠক। সেই বৈঠকেই এমপি ল্যাডের টাকা ফের চালু করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বৈঠক শেষে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর (Anurag Thakur) জানিয়েছেন, চলতি বছরে আংশিকভাবে এবং ২০২২ সাল থেকে পূর্ণাঙ্গভাবেই সাংসদদের নিজস্ব এলাকায় উন্নয়নের জন্য অর্থ দেওয়া হবে। চলতি অর্থবর্ষে সাংসদরা এককালীন দু’কোটি টাকা করে পাবেন। পরের বছর অর্থাৎ ২০২২ সাল থেকে সাংসদরা আগের মতোই বছরে ৫ কোটি টাকা করে পাবেন। তবে এই টাকা দুটি কিস্তিতে আড়াই কোটি করে দেওয়া হবে। লোকসভা (Lokshava) এবং রাজ্যসভার (Rajya shava) সব সাংসদই এই টাকা পাবেন। ২০২৫-২৬ অর্থবর্ষ পর্যন্ত প্রতিবছর সাংসদরা নিজেদের এলাকার উন্নয়নের জন্য ৫ কোটি টাকা করে পাবেন।

- Advertisement -

উল্লেখ্য করোনাজনিত কারণে ২০১৯ সালের এপ্রিল মাসে এমপি ল্যাডের টাকা দেওয়া বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল নরেন্দ্র মোদি সরকার। কেন্দ্র সিদ্ধান্ত নিয়েছিল, দু’বছর এই টাকা দেওয়া হবে না।

এমপি ল্যাডের টাকা বাতিল করার সিদ্ধান্তে গোটা দেশ জুড়ে তীব্র শোরগোল পড়েছিল। বিরোধী রাজনৈতিক দল মোদি সরকারের এই সিদ্ধান্তের কড়া সমালোচনা করে। বিরোধীদের দাবি ছিল, এভাবে এমপি ল্যাডের বরাদ্দ বাতিল করে এলাকার মানুষের নৈতিক অধিকার হস্তক্ষেপ করছে মোদি সরকার। সাধারণ মানুষকে কখনওই তাদের অধিকার থেকে বঞ্চিত করা যায় না। এই সিদ্ধান্ত অগণতান্ত্রিক। সরকারের উচিত ছিল করোনা পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে এমপিদের টাকা বাড়ানো। কিন্তু সেটা না করে সরকার উল্টো পথে হেঁটে মানুষের সমস্যা বাড়ালো।

উল্লেখ্য, সাংসদদের টাকা দু বছর বন্ধ রাখা হয়েছিল। তবে সেই টাকা গিয়েছিল সংসদের স্থায়ী তহবিলে। একজন সাংসদ প্রতিবছর এলাকার উন্নয়নের জন্য ৫ কোটি টাকা করে পান। অর্থাৎ দু’বছরে একজন সাংসদ পেয়ে থাকেন ১০ কোটি টাকা। দু’বছর এমপি ল্যাডের টাকা বন্ধ থাকায় সরকারের সাশ্রয় হয়েছে ৭৯০ কোটি টাকা।
অন্যদিকে আর্থিক বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, মোদি সরকার করোনারজনিত পরিস্থিতি ধীরে ধীরে কাটিয়ে উঠছে। অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করেছে। সে কারণেই এমপি ল্যাডের টাকা পুনরায় চালু করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হল।

- Advertisement -

Video News

Top News Headlines

Latest Posts

Don't Miss