""
Thursday, October 6, 2022
Homeদেশের দশদিকটাকা দিলে তবেই ভোট মিলবে বলে স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন গ্রামবাসীরা

Latest Posts

টাকা দিলে তবেই ভোট মিলবে বলে স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন গ্রামবাসীরা

- Advertisement -

News Desk, New Delhi: রাত পোহালেই তেলেঙ্গানার হুজুরাবাদ বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচন। কিন্তু এই উপনির্বাচনের আগে ওই কেন্দ্রের বীনাবাঙ্কা গঙ্গারাম গ্রামের গ্রামবাসীদের বিক্ষোভকে কেন্দ্র করে জমে উঠেছে রাজনৈতিক কাজিয়া। বিধানসভা নির্বাচনে হুজুরাবাদ কেন্দ্রটি দখল করেছিল রাজ্যের শাসক দল টিআরএস। কিন্তু বিধায়কের মৃত্যু হওয়ায় ওই কেন্দ্রে উপ-নির্বাচন হচ্ছে আগামীকাল শনিবার।

উপ নির্বাচনের আগে গত কয়েকদিন ধরেই বীনাবাঙ্কা গঙ্গারাম গ্রামের বাসিন্দারা তুমুল বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন। গ্রামবাসীরা স্পষ্ট জানিয়েছেন, তাঁদের একটি মূল্যবান ভোট পেতে হলে টাকা দিতে হবে। আগে টাকা পরে ভোট। টাকা না পেলে কোনওভাবেই তাঁরা বুথমুখো হবেন না।

- Advertisement -

গ্রামের মহিলাদের অভিযোগ, আগের বিধানসভা নির্বাচনে টিআরএস তাঁদের ভোট দেওয়ার জন্য টাকা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। সেকারণেই তাঁরা টিআরএস প্রার্থীকে ভোট দিয়েছিলেন। কিন্তু ভোট মিটে গেলেও টিআরএসের পক্ষ থেকে আর টাকা দেওয়া হয়নি।

শুক্রবার সকালে ওই গ্রামের সরপঞ্চের বাড়ির সামনে বহু মহিলা বিক্ষোভ দেখান। তাঁদের অভিযোগ, বেছে বেছে কিছু পরিবারকে মুখ বন্ধ খামে টাকা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু টাকা যদি দিতেই হয় তবে সকলকেই দিতে হবে। টাকা না দিলে তাঁরা কেউ ভোট দিতে যাবেন না। ওই মহিলারা আরও বলেন, তাঁরা নিতান্তই গরীব। তাঁদের বাড়িঘর কিছুই নেই। দু’বেলা দু’মুঠো খাবারও জোটে না। এই অবস্থায় ভোট দিলে যদি কিছু টাকা মেলে তো সেটাই লাভ। তাই টাকা না পেলে তাঁরা ভোট দেবেন না।

গ্রামবাসীদের দাবি মুখ্যমন্ত্রী কেসিআর তাঁদের জন্য টাকা পাঠান। কিন্তু স্থানীয় নেতারা সেই টাকা নিজেদের পকেট পুরেছেন। মহিলাদের বিক্ষোভ ও দাবির বিষয়টি সামনে আসতেই সরব হয়েছে কংগ্রেস। তেলেঙ্গানার প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অভিযোগ করেছেন, বিজেপি ও টিআরএস দুই দলই ভোটারদের কিনতে এভাবেই টাকা ছড়িয়ে থাকে।

এতদিন তাঁরা টাকা দেওয়ার অভিযোগ করলেও কেউ সে কথা বিশ্বাস করেনি। কিন্তু বীনাবাঙ্কা গ্রামের বাসিন্দাদের এই বিক্ষোভই প্রমাণ করে দিল যে, বিজেপি এবং টিআরএস রীতিমতো টাকা দিয়ে ভোট কেনে। এই মুহূর্তে কেন্দ্রে ক্ষমতায় রয়েছে বিজেপি। অন্যদিকে রাজ্যে টিআরএস। তাই তাদের টাকার কোনও অভাব নেই। টিআরএস তো এক একটি পরিবারকে ছয় থেকে আট হাজার টাকা দিচ্ছে। বিজেপিও পিছিয়ে নেই। তারাও দিচ্ছে দেড় থেকে দু’হাজার টাকা।

কংগ্রেস নেতৃত্বের দাবি, নির্বাচন কমিশনের উচিত হুজুরাবাদ কেন্দ্রের উপনির্বাচন বাতিল করা। কারণ এই নির্বাচনে বিজেপি ও টিআরএস টাকা দিয়ে ভোট কিনছে। তাই এই ভোটে মানুষের মতামতের প্রকৃত প্রতিফলন হবে না। বিজেপিও টিআরএস ক্ষমতার অপব্যবহার করে নির্বাচনকে পরিহাসে পরিণত করেছে।

- Advertisement -

Video News

Top News Headlines

Latest Posts

Don't Miss