Pegasus: জাতীয় নিরাপত্তাকে অগ্রাধিকার দিয়ে পেগাসাস কাণ্ডে তদন্তের নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের

365
Pegasus case

Political Desk, New Delhi: শেষ পর্যন্ত নরেন্দ্র মোদি সরকারকে বিপাকে ফেলে পেগাসাস (Pegasus case) কাণ্ডের পূর্ণাঙ্গ তদন্তের নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট। শুধু তদন্তের নির্দেশ দেওয়াই নয়, তদন্ত করার জন্য তিন সদস্যের একটি কমিটিও তৈরি করেছে শীর্ষ আদালত। দেশের প্রধান বিচারপতি এনভি রামান্নার নেতৃত্বাধীন বেঞ্চে বুধবার সকালে পেগাসাস মামলার শুনানি শুরু হলে এই নির্দেশ জারি হয়।

শুনানি শুরু হওয়ার পরই প্রধান বিচারপতি বলেন, সবার আগে দেশের নিরাপত্তা। তথ্যের গোপনীয়তা রক্ষা করা অবশ্যই দরকার। এটা কেন্দ্রের দায়িত্ব। কেন্দ্র কোনওভাবেই তার দায় এড়াতে পারে না। সেই কাজ ঠিক পথে এগোচ্ছে কিনা তা জানতে তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করার কথা বলে বেঞ্চ।

সুপ্রিম কোর্টের বেঞ্চ এদিন জানিয়েছে, তিন সদস্যের এই কমিটিতে থাকছেন শীর্ষ আদালতের প্রাক্তন বিচারপতি আর ভি রবীচন্দ্রন ও দুই সাইবার বিশেষজ্ঞ অলোক জোশি এবং সন্দ্বীপ ওবেরয় । কমিটির নেতৃত্ব দেবেন প্রাক্তন বিচারপতি রবীচন্দ্রন।

এদিন এই নির্দেশ জারি করার আগে মোদি সরকারকে কড়া ভাষায় তিরস্কার করেন প্রধান বিচারপতি। তিনি বলেন, পেগাসাস নিয়ে সবকিছু জানানোর জন্য কেন্দ্রকে যথেষ্ট সময় দেওয়া হয়েছে। কিন্তু পেগাসাস কাণ্ড নিয়ে এখনও পর্যন্ত কেন্দ্র কোন তথ্য প্রমাণ পেশ করেনি। ব্যক্তি গোপনীয়তার অধিকার রক্ষা করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। বিশেষ কোন ব্যক্তির নয়, দেশের প্রতিটি নাগরিকের গোপনীয়তা রক্ষার বিষয়টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাই আদালত এ বিষয়ে চুপ করে বসে থাকতে পারে না। পেগাসাস নিয়ে যারা আবেদন করেছেন তারা অনেকেই আড়ি কাণ্ডের শিকার হয়েছেন বলে প্রধান বিচারপতি জানান। এরপর রামান্না মন্তব্য করেন, এ ব্যাপারে উপযুক্ত তদন্ত হওয়া উচিত।  এই নির্দেশ জারির পাশাপাশি শীর্ষ আদালতের বেঞ্চ জানিয়েছে, ৮ সপ্তাহ পর পেগাসাস মামলার শুনানি হবে।

পেগাসাস কাণ্ডকে চ্যালেঞ্জ করে যারা সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করেছেন তাদের মধ্যে রয়েছেন সিপিএমের রাজ্যসভার সাংসদ জন ব্রিটন এবং আইনজীবী মনোহরলাল শর্মা। আবেদনকারীদের মধ্যে আছেন বিশিষ্ট সাংবাদিক এন রাম ও শশী কুমার। পাশাপাশি পেগাসাস মামলার তদন্তের দাবি জানিয়েছে এডিটর গিল্ডস অফ ইন্ডিয়া। অনেকেই মনে করছেন, এদিনের সুপ্রিম নির্দেশে নরেন্দ্র মোদি সরকারকে অবশ্যই বেকায়দায় পড়তে হবে। কারণ মোদি সরকার কিছুতেই পেগাসাস নিয়ে সরকারের অবস্থান স্পষ্ট করেনি। কিন্তু তদন্ত কমিটির সামনে এবার সেই বিষয়টি প্রকাশ হবে।