Bangladesh: দুর্গাপূজা মণ্ডপে ভাঙচুর, হামলাকারীরা খুন করেছে পূজারীসহ তিনজনকে

848
Puja pandal attack bangladesh

নিউজ ডেস্ক: বাংলাদেশে কুমিল্লায় দুর্গাপূজা ঘিরে ধর্মীয় অবমাননার অভিযোগে পরপর হামলা ভাঙচুর, হামলাকারীদের রুখতে পুলিশের গুলি, মৃত্যু সবই ঘটে চলেছে। এই তালিকায় জুড়ল সংখ্যালঘু হিন্দু সম্প্রদায়ের কয়েকজনের নাম।

এবার অভিযোগ, নোয়াখালীর চৌমুহনীতে পূজা মণ্ডপে হামলার পর এক পূজারীকে পিটিয়ে মারা হয়েছে। নিহতের নাম যতন সাহা। চাঁদপুর জেলায় দুর্গামণ্ডপে হামলার সময় হামলাকারীরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে মানিক সাহাকে। হাসপাতালে নিয়ে গেলে তাঁর মৃত্যু হয়। খবর এসেছে আরও একজন মৃত। চট্টগ্রাম থেকে বেশ কয়েকটি ধর্ষণ ও হামলার অভিযোগ এসেছে। কয়েকটি পূজামণ্ডপে ভাঙচুর হয়।

দুর্গাপূজায় বাংলাদেশে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে বুধবার থেকে। সেদিনই কুমিল্লায় একটি পূজামণ্ডপে কোরান শরিফ রাখার ছবি দেখে সোশ্যাল সাইটে উত্তেজনা ছড়ানো হয়। এরপরেই হামলাকারীরা পরপর ভাঙতে থাকে মন্ডপ। শুক্রবারও কিছু উগ্র বার্তায় ফের পরিস্থিতি হয় উত্তপ্ত রাজধানী ঢাকায়। হামলাকারীদের রুখতে পুলিশের গুলি চালায় ফের।

বিবিসি জানাচ্ছে পরিস্থিতি উত্তেজনাপূর্ণ।নোয়াখালী ও চট্টগ্রামে কয়েকটি পূজামণ্ডপে হামলা হয়েছে। কুমিল্লা, চাঁদপুর সহ দেশের বিভিন্ন স্থানে মন্দির ও পূজামণ্ডপে হামলার ঘটনা ঘটেছে। চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে হামলা রুখতে পুলিশ গুলি চালায়। সংঘর্ষে কয়েকজনের মৃত্যু হয়। এরা সবাই হামলাকারী।

বিবিসি জানাচ্ছে, নোয়াখালী জেলার বেগমগঞ্জের চৌমুহনীতে একাধিক দোকানও বাড়িঘরে হামলা চালানোর খবর পাওয়া গেছে। চট্টগ্রামে কয়েকটি মণ্ডপ ও মন্দিরে হামলার চেষ্টা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের নেতা রানা দাশগুপ্ত।

দুর্গাপূজা ঘিরে পরপর হামলার ঘটনার পিছনে রয়েছে ষড়যন্ত্র। দোষীদের গ্রেফতার করে কড়া শাস্তি দেবে। জানিয়েছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আশাদুজ্জামান খান কামাল জানান, কোনও অবস্থায় সম্প্রীতির পরিবেশ নষ্ট করতে দেওয়া হবেনা।