Bangladesh: ‘তালিবানি ফতোয়া’ দেওয়া শিক্ষিকা বরখাস্ত, বন্ধ রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়

498
Rabindra University have suspended teacher Farhana

নিউজ ডেস্ক: শিক্ষিকার তালিবানি ফতোয়ার কারণে প্রবল বিতর্ক ও বিক্ষোভের মুখে অবশেষে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করা হলো বাংলাদেশের রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়। স্থগিত করা হয়েছে সমস্ত পরীক্ষা। একাধিক ছাত্রের চুল কেটে দেওয়ায় অভিযুক্ত শিক্ষিকা ফারহানা ইয়াসমিনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

বাংলাদেশের সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় এখন প্রবল বিতর্কের কেন্দ্রে। এই বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও বাংলাদেশ অধ্যয়ন বিভাগের চেয়ারপারসন ফারহানা ইয়াসমিনের বিরুদ্ধে ছাত্রদের অভিযোগ, তিনি বহু ছাত্রের মাথার চুল কাটছিলেন। ব্যক্তিগত ফরমান জারি করেন কারোর বড় চুল রাখা যাবে না।

রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিষয়ের ছাত্রদের অনেককেই তাঁর সামনে মাথা মুড়িয়ে দেওয়া হয়। এক ছাত্র তীব্র অভিমানে আত্মঘাতী হওয়ার চেষ্টা করে এখনও চিকিৎসাধীন। বহু ছাত্র বিশ্ববিদ্যালয় ত্যাগ করে বাড়ি চলে যায়।

অভিযোগ, শিক্ষিকা ফারহানা ইয়াসমিন গুন্ডা ভাড়া করে বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়াদের হুমকি দেন। পড়ুয়াদের ফেল করিয়ে দেওয়ার হুঁশিয়ারি দেন। এর জেরে বিক্ষোভ চরমে ওঠে। পুরো বাংলাদেশ জুড়ে শুরু হয় প্রতিবাদ। রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তে প্রমাণ পায় শিক্ষিকা ফারহানা দোষী। তাঁকে সমস্ত পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর নির্দেশ দেওয়া হয়।

ছাত্রদের আরও অভিযোগ, ওই শিক্ষিকা যখন তখন গায়ে হাত দিয়ে কথা বলেন। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, শিক্ষিকা ফারহানা ইয়াসমিনের বিরুদ্ধে আরও যেসব অভিযোগ উঠেছে তার পূর্ণাঙ্গ তদন্ত হবে।