সৌরজগতের দ্রুততম গ্রহাণুর খোঁজ পেলেন বিজ্ঞানী এস শেফার্ড

288

নিউজ ডেস্ক: চিলিতে অবস্থিত ডার্ক এনার্জি ক্যামেরা (DECam) ব্যবহার করে আবিস্কৃত হল সৌরজগতের দ্রুততম গ্রহাণু। ৫৭-মেগাপিক্সেল ডিইক্যাম ব্যবহারে আবিস্কৃত ‘2021PH27’ নামের গ্রহাণুটি সূর্যের চারপাশে তার কক্ষপথ মাত্র ১১৩ দিনে শেষ করে।

আরও পড়ুন চাঁদে জলের অনু খুঁজে পেল ইসরোর চন্দ্রযান-২

যা আমাদের সৌরজগতের অন্যান্য গ্রহাণুর চেয়ে দ্রুততর। সূর্য থেকে গ্রহাণুর নিকটতম দূরত্ব প্রায় ২০ মিলিয়ন কিলোমিটার, যা সূর্যের থেকে বুধের দূরত্বের চেয়ে তিনগুন কম। যদিও সৌরজগতের ক্ষুদ্রতম গ্রহ তার কক্ষপথ যাত্রা মাত্র ৮৮ দিনে শেষ করে। ফলে সবচেয়ে কম সময়ে সূর্যকে প্রদক্ষিণ করার কৃতিত্ত্ব এখনও সূর্যের সবচেয়ে কাছের গ্রহরই।

আরও পড়ুন রাজস্থানে ভেঙে পড়ল ভারতীয় যুদ্ধ বিমান মিগ-২১

সূর্যের সঙ্গে তার দূরত্বও। খুব কাছে থাকার ফলে এটির তাপমাত্রা ৫০০ ডিগ্রি সেলসিয়াস। প্রাথমিক ভাবে ১ কিমি চওড়া এই গ্রহাণুটি মঙ্গল ও বৃহস্পতির মাঝে থাকলেও পরে বিভিন্ন গ্রহের মহাকর্ষের ধাক্কায় সেটি সূর্যের কাছাকাছি পৌঁছে গিয়েছে। কিন্তু কোনওভাবে পাক খেতে খেতে কি পৃথিবীর দিকে ছুটে আসতে পারে এই গ্রহাণু? আপাতত তেমন কোনও সম্ভাবনা নেই বলেই জানিয়েছে বিজ্ঞানীরা।

আরও পড়ুন NASA Report: কলকাতার বিস্তীর্ণ অঞ্চলসহ দেশের ১২টি শহর নিশ্চিহ্ন হবে

গ্রহাণুটি আবিষ্কার করেছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন ডিসিতে অবস্থিত ‘কার্নেগি ইনস্টিটিউশন অফ সায়েন্স’-এর বিজ্ঞানী এস শেফার্ড। শেফার্ড ওয়াশিংটন ডিসির কার্নেগি ইনস্টিটিউশন ফর সায়েন্সে বহুদিন ধরেই কাজ করেন। ১৩ আগস্ট গোধূলির সময় ডিইক্যামের তোলা ছবি বিশ্লেষণ করছিলেন তিনি। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ব্রাউন ইউনিভার্সিটির বিজ্ঞানী ইয়ান ডেল এন্টোনিও এবং শেনমিং ফু স্থানীয় ভলিউম কমপ্লিট ক্লাস্টার সার্ভের পর্যবেক্ষণ করার সময় ছবিগুলো তোলেন। আপাতত ওই গ্রহাণুটিকে পর্যবেক্ষণে রাখতে চান বিজ্ঞানীরা। কিন্তু আবার আগামী বছর সেটিকে দেখা যাবে বলে জানিয়েছে বিজ্ঞানীরা। কক্ষপথে ঘোরার সময় আপাতত অন্য গ্রহের পেছনে লুকিয়ে পড়েছে সেটি।

EKolkata24 এখন টেলিগ্রামেও…