ফায়ার ব্রিগেড থেকে ঘর ওয়াপসি মহম্মদ আলি পার্কের

682
Durgapujo in Mohammad Ali Park

নিউজ ডেস্ক: ২০১৯ এ জলাধারের কাজের জন্য স্থানান্তরিত করতে হয়েছিল মহম্মদ আলি পার্কের পুজো। দু’বছর পর ফের নিজেদের জায়গায় ফিরে আসছে তাদের দুর্গাপুজো। ইয়ুথ আাসোশিয়েশন আয়োজিত মহম্মদ আলি পার্কের (Mohammad Ali Park)দুর্গাপুজোর এবারের থিম ভ্যাক্সিনেশন উইনস ওভার করোনা’।

মহম্মদ আলি পার্কের জেনারেল সেক্রেটারি মিঃ সুরেন্দ্র কুমার শর্মা সংবাদমাধ্যমকে জানালেন, “২০২০ যদি হয় কোভিড সংক্রমণের বছর, তবে ২০২১ কে অবশ্যই বলতে হবে টিকাকরণের অর্থাৎ ভ্যাক্সিনেশনের বছর এবং ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়তে এটাই একমাত্র অস্ত্র। সেই বার্তাই এবার আমরা আমাদের পুজোতে দিতে চাইছি।দর্শকদের মন্ডপের ভেতর প্রবেশের অনুমতি ঘদিও থাকছেনা, তবু আমরা এমন ব্যবস্থা করছি, ঘাতে তাঁরা বাইরে থেকেই পুজো উপভোগ করতে পারেন। ১৫ ফুট দুর থেকেই খুব স্পষ্টভাবে প্রতিমা দর্শন করা ঘাবে। এটাও সত্যি,সকলের স্বাস্থ্যের থেকে গুরুত্বপূর্ণ কিছুই হয়না। আমরা অবশ্যই আগামী বছরগুলোতে জাঁকজমক করে পুজোর আয়োজন করব।

Mohammad Ali Park

মধ্য কলকাতার অন্যতম সেরা দুর্গাপুজো এই মহম্মদ আলি পার্কের পুজো, যা প্রত্যেক দর্শনার্থীদের অবশ্য গন্তব্যের তালিকায় থাকে তাদের অভূতপূর্ব মন্ডপসজ্জার জন্য। উল্লেখ্য, পুজোর যাত্রা শুরু হয়েছিল ১৯৬৯ সালে তারা চাঁদ দত্ত স্ট্রিটে। কিন্তু অতি অল্প দিনের মধ্যেই তা এতটাই জনপ্রিয় হয়ে ওঠে, যে পুজো স্থানান্তরিত করে আনা হয় বর্তমানের এই মহম্মদ আলি পার্কে।

সেখানেই আবার ফিরছে এই বিখ্যাত পুজো। মধ্য এবং উত্তর কলকাতার যথেষ্ট মর্যাদাপূর্ণ ইয়ুথ আ্যাসোশিয়েশন ক্লাবটি বিভিন্ন বিভাগে ইতিমধ্যেই প্রচুর পুরস্কার লাভ করেছে৷ গত বছর মহম্মদ আলি পার্ক মহিষাসুরের জায়গায় করোনাসুরের আদলে মায়ের সাবেকি মুর্তি করেছিল, যা যথেষ্ট সাড়া ফেলেছিল। এই এ বছর এই ক্লাব একচালা মায়ের মূর্তি তৈরি গড়ছে।