পাকিস্তান ম্যাচের আগে অলরাউন্ডার ভেঙ্কটেশ আইয়ারকে ফেরত পাঠানো নিয়ে বিতর্ক

451
Controversy over the return of all-rounder Venkatesh Iyer before the Pakistan match

স্পোর্টস ডেস্ক: বিরাট কোহলির নেতৃত্বাধীন ভারতীয় জাতীয় ক্রিকেট দলকে পাকিস্তান, নিউজিল্যান্ড, আফগানিস্তান, স্কটল্যান্ড এবং নামিবিয়ার সাথে আইসিসি পুরুষদের টি-২০ বিশ্বকাপ ২০২১ র গ্রুপ ২’এ রাখা হয়েছে। ২৪ অক্টোবর দুবাইয়ে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তানের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের মাধ্যমে দ্য মেন ইন ব্লু তাদের সুপার ১২ যাত্রা শুরু করবে। শুধু পাকিস্তানের বিরুদ্ধে হাইভোল্টেজ ম্যাচই নয়,গোটা বিশ্বকাপ জুড়ে ষষ্ঠ বোলিং অপশন নিয়ে হাহাকার দেখা দিয়েছে ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্টে।

এদিকে ভারত তাদের চার নেট বোলারকে দেশে ফেরত পাঠিয়েছে। ইতিমধ্যে ভারতে পৌঁছে যাওয়া বোলাররা হলেন চেন্নাই সুপার কিংস (সিএসকে) স্পিনার কর্ণ শর্মা, রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর (আরসিবি) স্পিনার শাহবাজ আহমেদ, চেন্নাই সুপার কিংস (সিএসকে) স্পিনার কৃষ্ণাপ্পা গৌতম এবং কলকাতা নাইট রাইডার্স (কেকেআর) অলরাউন্ডার ভেঙ্কটেশ আইয়ার।

ভেঙ্কটেশ আইয়ারের দেশে ফিরে আসা অনেক ভক্তদের কাছে অবাক করে দেওয়ার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। কারণ অনেকেই ভেবেছিলেন আইয়ার অলরাউন্ডার হার্দিক পান্ডিয়ার সম্ভাব্য বিকল্প খেলোয়াড়।যিনি এখন পর্যন্ত কোন নেট সেশনে বোলিং করেননি।

একবার টুর্নামেন্ট শুরু হলে খুব বেশি নেট সেশন হবে না – এমন মন্তব্য করেছেন বিসিসিআই’র এক আধিকারিক। ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের এক সিনিয়র আধিকারিক (বিসিসিআই) নিশ্চিত করেছেন যে সুপার ১২ পর্ব শুরু হওয়ার সাথে সাথে ভারতে খুব বেশি সেশন হবে না। এদিকে, বোলারদের ভারতে ফেরত পাঠানো হয়েছে যাতে তারা সৈয়দ মুসতাক আলী টি-২০ টুর্নামেন্ট খেলতে পারে, এই টুর্নামেন্ট ক্রিকেটারদের উপকারে লাগবে।

“হ্যাঁ, টুর্নামেন্ট শুরু হওয়ার পরে খুব বেশি নেট সেশন হবে না। জাতীয় নির্বাচকরা মনে করেন যে সব স্পিনার বিশেষ করে উপকৃত হবে যদি তারা দেশে ফিরে যায় এবং নিজের রাজ্যের হয়ে সৈয়দ মুসতাক আলী ট্রফি খেলে। তাদের ম্যাচ অনুশীলন দরকার। ” “এছাড়াও অতিরিক্ত অনুশীলনের সাথে এই গরমে, আমাদের এত স্পিনার লাগবে না,” নাম প্রকাশ না করার শর্তে বিসিসিআইয়ের একজন সিনিয়র আধিকারিকের সংবাদ সংস্থা পিটিআই’কে দেওয়া এমন মন্তব্য ঘিরে তোলাপাড় দেশের ক্রিকেট মহল।

এদিকে, ভারত তাদের সব নেট বোলারকে দেশে ফেরত পাঠায়নি। কারণ চারজন ফাস্ট বোলার আছে, যাদেরকে থাকতে বলা হয়েছে। দিল্লি ক্যাপিটালসের বোলার আবেশ খান, লুকমান মেরিওয়ালা, সানরাইজার্স হায়দরাবাদ (SRH) পেসার উমরান মালিক এবং ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) ২০২১’র শীর্ষস্থানীয় উইকেট শিকারী RCB পেসার হর্ষল প্যাটেল বিশ্বকাপে অনুশীলন সেশনে ভারতকে সাহায্য করবে।