বিজেপির ‘হামলা’ রুখে বামেদের ‘আক্রমণ’, মানিকের দাবি কর্মীরা ‘হিরো-হিরোইন’

480
Manik Sarkar

নিউজ ডেস্ক: আপনারাই হিরো-হিরোইন! মানিক ভাষণে চমকে গিয়েছে ত্রিপুরা। সাম্প্রতিক অতীত তো বটেই, দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে এমন প্রথাভাঙা ভাষণ কবে দিয়েছেন বর্ষীয়ান সিপিআইএম নেতা তথা ত্রিপুরার বর্তমান বিরোধী দলনেতা মানিক সরকার (Manik Sarkar) তা নিয়ে তুুমুল চর্চা আগরতলার রাজনৈতিক মহলে। ত্রিপুরা সিপিআইএম রাজ্য দফতর দশরথ দেব ভবন সরগরম। শাসক বিজেপির সদর কার্যালয় কৃষ্ণনগরে গুঞ্জন মানিক সরকারের ভাষণ নিয়ে।

প্রথা ভাঙলেন মানিক। রাজনৈতিক ভাষণই হোক বা যে কোনও মন্তব্য ত্রিপুরার চারবারের মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার মেপে কথা বলেন। তাঁর বক্তব্যরীতি অনেকটা পশ্চিমবঙ্গের প্রয়াত মুখ্যমন্ত্রী জ্যোতি বসুর সঙ্গে মিলে যায়। গাম্ভীর্যপূর্ণ মন্তব্য করতেন জ্যোতিবাবু।

সোমবার নিজের বিধানসভা কেন্দ্র ধনপুরে যেতে গিয়ে ত্রিপুরার বিরোধী দলনেতা মানিক সরকার বিজেপি সমর্থকদের হামলার মুখে পড়েন। তাঁকে এলাকায় ঢুকতে না দিতে শাসক দলের সমর্থকরা বিক্ষিপ্ত হামলা চালায়। এর পরেই স্থানীয় সিপিআইএম সমর্থকরা তেড়ে যান হামলাকারীদের দিকে। দলীয় পতাকাকে লাঠি করে নিয়ে বিজেপি সমর্থকদের উপর চড়াও হয় বাম সমর্থকরা।

ভাইরাল হওয়া ভিডিও ফুটেজে দেখা গিয়েছে সিপিআইএম সমর্থকরা প্রবল আস্ফালন করছে। তাদের হামলায় পালাচ্ছে মানিকবাবুকে ঘেরাও করা বিজেপির সমর্থকরা। সিপিআইএমের অভিযোগ, পুলিশকে জানিয়ে গেলেও তারা বিজেপির হামলার সময় নীরব ছিল।

বাম সমর্থকদের হামলায় বহু বিজেপি সমর্থক এলাকাছাড়া। ভিডিও দেখে হামলার সময় কারা ছিল তাদের চিহ্নিত করছে সিপিআইএম। বিজেপির অভিযোগ, পুরনো কায়দায় সন্ত্রাস চালাচ্ছে বামেরা।

মানিক সরকারের কনভয় আক্রান্ত, পাল্টা বাম কর্মীদের আক্রমণ সবমিলে ত্রিপুরা উত্তপ্ত। শুধু মানিকবাবুর কেন্দ্র ধনপুর নয়, আরও কয়েকটি এলাকায় বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষ ছড়িয়েছে বলেই খবর।

ধনপুর থেকেই পরপর চরবার মুখ্যমন্ত্রী হয়েছেন মানিক সরকার। গত বিধানসভা নির্বাচনে ত্রিপুরায় বামফ্রন্টের পতন হয়। সরকার গড়েছে বিজেপি আইপিএফটি জোট। মানিকবাবু জিতেছেন। তিনি বিরোধী দলনেতা।

সেই ধনপুরেই মানিক সরকার হামলার পরে সভা করেন। তিনি বাম কর্মী সমর্থকদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনারা হিরো-হিরোইনের মতো ভূমিকা নিয়েছেন। তাঁর ভাষণে এমন ধরণের শব্দের জেরে রাজনৈতিক হাওয়া গরম।
সম্প্রতি আগরতলায় তৃণমূল কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় দাবি করেন, পশ্চিমবঙ্গের মতো ত্রিপুরায় সরকার হারিয়ে সিপিআইএম এখন পিঁপড়ের মতো অবস্থা।