10.4 C
London
Monday, November 28, 2022
HomeUncategorizedপতনের মুখে পঞ্জশির? তালিবান থমকে, রুশ সাহায্য চান মাসুদ

Latest Posts

পতনের মুখে পঞ্জশির? তালিবান থমকে, রুশ সাহায্য চান মাসুদ

- Advertisement -

নিউজ ডেস্ক: ‘পঞ্জশিরের সিংহ’ বাবা আহমেদ শাহ মাসুদের মারাত্মক তালিবান বিরোধিতার পথেই এবারও গর্জন করছেন পুত্র মাসুদ। কিন্তু পঞ্জশির বাদে পুরো আফগানিস্তানের কব্জা এখন তালিবান দখলে। বিশ্বশক্তি ইতিবাচক বার্তা দিতে শুরু করেছে। আর তালিবানি শরিয়া আইন বিরোধী গোষ্ঠী নর্দান অ্যালায়েন্স লড়াই চালাচ্ছে।

আফগান সংবাদ মাধ্যমের খবর, পঞ্জশির দখলে মরিয়া তালিবান। তাদের নেতা হাইবাখান্দা আখুন্দাজাদা কোনওভাবেই আফগান মাটিতে বিরোধী শক্তির অবস্থান চায় না। তালিবান মিলিটারি কাউন্সিল তথা জঙ্গি সংগঠনটির সর্বচ্চো এই নেতার নির্দেশ যে করেই হোক পঞ্জশির দখল করতে হবে।

- Advertisement -

এদিকে পঞ্জশির থেকে প্রত্যাঘাত শুরু হয়েছে তালিবান বিরোধী আফগান শক্তির। পঞ্জশিরের বর্তমান শাসক আহমেদ মাসুদ জানিয়েছেন কোনও অবস্থায় তালিবানকে মেনে নেওয়া হবে না।

অপর একটি তালিবান বিরোধী শক্তি আফগান মার্শাল আবদুল রশিদ দোস্তাম গেরিলা কায়দায় হামলা চালানোর প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলেই খবর। তিনি মাজার ই শরিফের শাসক ছিলেন। গত ১৫ আগস্ট তালিবান জঙ্গিরা দ্বিতীয়বার কাবু্ল দখল করার কিছু আগে তিনি দেশত্যাগ করে সীমান্তবর্তী উজবেকিস্তানের গোপন আস্তানায় চলে যান।

সোভিয়েত জমানার আফগান মার্শাল দোস্তাম ও সোভিয়েত বিরোধী পঞ্জশিরের সিংহ আহমেদ শাহ মাসুদের দোস্তি ছিল তীব্র আলোচিত। তাঁর প্রয়াণের পর দোস্তামের সঙ্গে জুনিয়র মাসুদের সম্পর্ক অটুট। দোস্তাম বার্তা পাঠিয়ে লড়াই জারি রাখতে বলেছেন।

কিন্তু কাবুল থেকে বেশি দূরে নয় পঞ্জশির। ফলে তালিবান তার পুরো শক্তি ব্যবহার করছে এই এলাকা দখলের। পঞ্জশির থেকে তারই জবাব দিয়ে চলেছেন জুনিয়র মাসুদ। বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমের খবর, পঞ্জশিরের দোরগোড়ায় থমকে গিয়েছে তালিবান। তবে অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছেন আহমদ মাসুদ। এই অবস্থায় তালিবানের সঙ্গে আলোচনার পথ নিতে চলেছেন তিনি। এই বিষয়ে রাশিয়া সরকারের সাহায্য চেয়েছেন।

রুশ সংবাদমাধ্যমের খবর,তালিবান বিরোধী গোষ্ঠীর আহমদ মাসুদ বলেন, আমি আশা করছি রাশিয়া একমাত্র আফগানিস্তানের পরিস্থিতি এই মুহূর্তে নিয়ন্ত্রণ করতে পারে। যারা আফগানিস্তান ত্যাগ করতে পারছে না, তাদের জন্য নিরাপদ অঞ্চল তৈরি করতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়, রাশিয়াসহ আঞ্চলিক শক্তিগুলো তালিবানকে চাপ দিতে পারে।

মাসুদ বলেন, আমি আন্তরিকভাবে বিশ্বাস করি শান্তি আলোচনাই একমাত্র সমাধান। কিন্তু পঞ্জশির উপত্যকায় কিছু সামরিক কূটচাল এবং প্রস্তুতি আছে, আমরাও আত্মরক্ষার প্রস্তুতি নিচ্ছি।

- Advertisement -

Video News

Top News Headlines

Latest Posts

Don't Miss