""
Thursday, October 6, 2022
HomeUncategorizedBangladesh: দুর্গাপূজায় হামলার ছক হয় লন্ডনে, খালেদা পুত্রকে জড়িয়ে চাঞ্চল্যকর অভিযোগ

Latest Posts

Bangladesh: দুর্গাপূজায় হামলার ছক হয় লন্ডনে, খালেদা পুত্রকে জড়িয়ে চাঞ্চল্যকর অভিযোগ

- Advertisement -

News Desk: বিস্ফোরক অভিযোগ করলেন বাংলাদেশের তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। তাঁর অভিযোগ, দুর্গাপূজায় সাম্প্রদায়িক হামলায় বিএনপি-জামাত ইসলামি জড়িত। তিনি ইঙ্গিত দিয়েছেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার পুত্র তারেক রহমান সবকিছুর পরিকল্পনা করে।

বাংলাদেশের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী তথা বিএনপি দলের প্রধান নেত্রী খালেদা জিয়ার পুত্র তারেক রহমান দীর্ঘদিন দেশছাড়া। নাশকতা ও ষড়যন্ত্র মামলায় অভিযুক্ত। তাকে পলাতক ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ সরকার। তারেক লন্ডনে থাকেন। সেখান থেকেই দল পরিচালনা করেন।

- Advertisement -

মঙ্গলবার রাজশাহীতে সাংবাদিকদের তথ্যমন্ত্রী ড হাছান মাহমুদ বনেন, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের পরিকল্পনায় সারা দেশে সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনা ঘটেছে। এর পরিকল্পনা হয়েছে সুদূর লন্ডনে বসে। দীর্ঘ একমাস ধরে এই পরিকল্পনা চলে। তিনি বলেন, সেই ষড়যন্ত্রেরই অংশ হচ্ছে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট। এই উদ্দেশ্যে দুর্গাপূজার সময় পূজামণ্ডপে হামলা পরিচালনা করেছে তারা।

দুর্গাপূজা চলাকালীন কুমিল্লায় একটি পূজা মণ্ডপে কোরান শরিফ রেখে হামলা ছড়ানো হয়েছিল। এর জেরে বাংলাদেশে পরপর আক্রান্ত হয় সংখ্যালঘু হিন্দুদের বাড়ি, দোকান। হামলাকারীদের রুখতে পুলিশ গুলি চালায়। ৫ জন মারা যায়। আর হামলাকারীদের হাতে দুই সংখ্যালঘু খুন হন। দুর্গা মণ্ডপে কোরান রাখার অভিযোগে ইকবাল হোসেন নামে এক ব্যক্তি ধৃত। সাম্প্রদায়িক উস্কানি ছড়ানোয় ঢাকার বদরুন্নেসা কলেজের সহকারী অধ্যাপিকা রুমা সরকারকে জেলে পাঠানো হয়েছে।

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, সাম্প্রদায়িক হামলার সঙ্গে সম্পৃক্ত সবাইকে খুঁজে বের করা হবে। এদের কঠোর হস্তে দমন করা হবে। ষড়যন্ত্রকারীরা সবকিছুতে ব্যর্থ
হয়ে এবার দুর্গাপূজায় হনুমানের মূর্তির কাছে কোরান শরিফ রেখে আসে। কারা রেখেছে? যে রেখেছে, তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সে তো আসলে রাখেনি। সে কারও নির্দেশে সেখানে রেখে এসেছে। কারা এর পেছনে আছে, সেটি খুব সহসা বের হবে। খুবই স্পষ্ট যে, কারা এগুলো ঘটিয়েছে।

তিনি বলেছেন, সাম্প্রদায়িকতা নিয়ে রাজনীতি করে বিএনপি-জামায়াত, ধর্মান্ধ-উগ্রবাদীরা। বাংলাদেশের কোনও সম্প্রদায়ের লোক অপরের ধর্মগ্রন্থ অবমাননা করার মানসিকতা পোষণ করেন না।

তথ্যমন্ত্রী আরও বলেন, যারা এটি করেছে এবং তাকে যারা প্ররোচনা দিয়েছে, তারা আমাদের পবিত্র ইসলাম ধর্মকে অবমাননা করেছে। একইসঙ্গে হিন্দু ধর্মকেও অবমাননা করেছে। এই দেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করেছে। তাদেরকে খুঁজে বের করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে সরকার বদ্ধপরিকর।এই যুবককে কারা প্ররোচিত করেছে, কারা অর্থ দিয়েছে, কারা পালিয়ে যাওয়ার জন্য চট্টগ্রাম হয়ে কক্সবাজার পাঠিয়েছে- সবকিছুই বের হবে।

বাংলাদেশে দুর্গাপূজায় হামলার ঘটনায় সরকার ঘটনার পর ১০২টি মামলা করেছে। সাতশোর মতো দুষ্কৃতকারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। কঠোর হস্তে সরকার এটি দমন করেছে।

- Advertisement -

Video News

Top News Headlines

Latest Posts

Don't Miss