গোয়েন্দা রিপোর্ট: ত্রিপুরায় দূর্বল হচ্ছে বিজেপি, ঘর গোছাচ্ছে মানিক-মমতা

432
Bjp loosing supporter base In tripura

নিউজ ডেস্ক: ফের মানিক নাকি মমতামুখী ত্রিপুরা? আগরতলার রাজনৈতিক মহলের এমন গুঞ্জন যে আসলেই ত্রিপুরার শাসক বিজেপির জন্য বড়সড় ধসের ইঙ্গিত সেটি সরকারকে জানিয়েছে গোয়েন্দা রিপোর্ট।

মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের কাছে পৌঁছে যাওয়া রিপোর্টের কিছু অংশ জেনে ত্রিপুরা প্রদেশ বিজেপির শীর্ষ নেতাদের একাংশ খোদ মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধেই ক্ষুব্ধ। বিজেপি সমর্থকদের তৃণমূল কংগ্রেসের দিকে চলে যাওয়ার প্রবণতা বাড়ছেই। গোয়েন্দা রিপোর্টে এসেছে এই তথ্য।

ত্রিপুরা প্রদেশ তৃণমূল কংগ্রেসে দাবি, হুড়মুড়িয়ে বিজেপি ভেঙে পড়বে। নাম প্রকাশ না করলেও টিএমসি জানাচ্ছে, রাজ্যের শাসকপক্ষের দুই বিধায়ক মমতা শিবিরে ফিরে আসছেন। তাদের সঙ্গেই বাকিরা আসবেন। যদিও ত্রিপুরা প্রদেশ টিএমসি সভাপতি আশীষলাল সিংহ জানান, গত বিধানসভা ভোটের আগে যারা কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূল কংগ্রেসে এসেছিলেন তারা পরে বিজেপিতে যান। সেই নেতারা ফিরতে মরিয়া।

গত বিধানসভা ভোটের আগে ত্রিপুরার ততকালীন কংগ্রেস হেভিওয়েট বিধায়ক সুদীপ রায় বর্মণ দলবদলে টিএমসিতে যান। তাঁর অনুগামী বিধায়কদের নিয়েই ত্রিপুরায় বিরোধী দল হয়েছিল তৃণমূল কংগ্রেস। সেই বিধায়করা পরে বিজেপিতে যান। এখন তারা সরকারে। তারাই এখন মুখ্যমন্ত্রীর প্রবল বিরোধী।

ত্রিপুরায় তৃণমূল নিজেদের জমি তৈরিতে ব্যাস্ত। গোয়েন্দা রিপোর্টে বলা হয়েছে, রাজ্যবাসী যাদের বড় অংশ গত নির্বাচনে বিজেপিকে ভোট দিয়েছিলেন তারা তৃণমূলমুখী হচ্ছেন। গত নির্বাচনে ত্রিপুরায় টানা ২৫ বছরের বাম জমানা শেষ হয়েছে। সরকারে এখন বিজেপি-আইপিএফটি জোট।

গোয়েন্দা রিপোর্ট বলছে লাগাতার ধাক্কা সামলে সিপিআইএম এখনও সংহত। তাদের সমর্থনে ধস আসছে না। তবে আগামী কয়েকমাসে বাম সমর্থন কিছুটা মমতামুখী হবেন। আর উপজাতি এলাকায় ক্ষমতাসীন নতুন দল হিসেবে রাজা প্রদ্যোত দেববর্মণের দল তিপ্রা মথা হতে চলেছে বিধানসভা ভোটে সবথেকে বড় ফ্যাক্টর।