‘নিকাশি উন্নয়নে’ এশিয়ান ব্যাঙ্ক থেকে 10 কোটি ডলার পেলেও জলে ভাসছে Kolkata

535
Rain, kolkata, neighborhood, Weather

নিউজ ডেস্ক: জলের তলায় কলকাতা (Kolkata)। কোথাও গোড়ালি, কোথাও হাঁটু, কোথাও কোমর-সমান জল। এককথায় এটাই এখন তিলোত্তমার চিত্র। যদিও ‘এখন’ শব্দটি এক্ষেত্রে প্রয়োগ করা অনুচিত। কারণ, প্রতি বছর বর্ষাতেই এই অবস্থাই হয় কলকাতার। এবছর গত কয়েকদিনে কলকাতার জমা জলে বিদ্যুতপৃষ্ট হয়ে মৃতের সংখ্যাটা প্রায় ১০। যদিও কলকাতার পুরসভার পুর প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম জানিয়ে দিয়েছেন উত্তরাখণ্ডে প্রবল বৃষ্টিতে গঙ্গার জলস্তর বৃদ্ধি পেয়েছে বলেই কলকাতা ভাসছে। উল্লেখ্য, বাংলায় বন্যার জন্য বারবারই ঝাড়খণ্ড এবং ডিভিসিকে দায়ী করে এসেছে মমতা সরকার। খোদ মুখ্যমন্ত্রী একবার বলেছিলেন, ঝাড়খণ্ডের বাঁধ থেকে জল ছাড়ার দরুন বাংলায় বৃষ্টি বাড়ছে। সত্যিই কি তাই?

আরও পড়ুন NASA Report: কলকাতার বিস্তীর্ণ অঞ্চলসহ দেশের ১২টি শহর নিশ্চিহ্ন হবে

তিন বছর আগে, ২০১৮ সালের অক্টোবর মাস নাগাদ একটি সরকারী বিবৃতিতে বলা হয়েছিল, কলকাতা শহরের নিকাশি ব্যবস্থা উন্নত করতে, জমা জলের সমস্যা থেকে শহরবাসীকে মুক্তি দিতে এবং সর্বোপরি কলকাতা পৌর কর্পোরেশনের (কেএমসি) সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য ভারত এবং এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক (ADB) ১০০ মিলিয়ন ডলার (১০ কোটি ডলার) চুক্তি স্বাক্ষর করেছে। ৪০০ মিলিয়ন ডলারের কলকাতা এনভায়রনমেন্টাল ইমপ্রুভমেন্ট ইনভেস্টমেন্ট প্রোগ্রামের (Kolkata Environmental Improvement Investment Program) অধীনে তৃতীয় এবং চূড়ান্ত কিস্তি হিসেবে এই টাকা দেওয়া হয়েছিল।

kolkata

ভারত সরকারের অর্থ মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানিয়েছিল, এটি কমপক্ষে ৩০০০ টি পরিবারে কেএমসির নির্বাচিত পেরিফেরাল এলাকায় ড্রেনেজ পরিষেবা সম্প্রসারণের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করবে। এবং কমপক্ষে ১০০০০০ পরিবারের জন্য স্যুয়েজ ব্যবস্থা উন্নত করবে।

ভারত সরকারের অর্থ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সমীর কুমার খারে এবং এডিবি’র ইন্ডিয়া রেসিডেন্ট মিশনের কান্ট্রি ডিরেক্টর কেনিচি ইয়োকোয়ামা চুক্তিটি স্বাক্ষর করেছিলেন। ভারতীয় টাকায় সেই টাকার অঙ্কটা ৭,৩৭,৬৬,০৫,০০০। এই বিপুল পরিমান টাকা পাওয়ার পরেও বারবার কেন একই অবস্থা হচ্ছে কলকাতার? তৃতীয়বারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী নির্বাচিত হয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, বিপুল জনমতে জিতে ক্ষমতায় এসেছে তৃণমূল। অথচ এখনও এই জল-যন্ত্রনা কেন কমেনি শহরবাসীর? এই প্রশ্নগুলিতেই এখন রাজ্যের শাসকদলকে কোনঠাসা করতে চাইছে বিরোধীরা।

জাতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির ২০১৮ সালের এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাঙ্ক থেকে লোন পাওয়ার খবর শেয়ার করে সোশ্যাল মিডিয়ায় তৃণমূলকে একহাত নিয়েছেন ডঃ ইন্দ্রনীল খাঁও। কলকাতার রাস্তায় জমা জলের একটি ছবি দেখিয়ে তিনি মন্তব্য করেন, “আপনাদের ১০০ মিলিয়ন ডলার”।