Pakistan: ৭০ বছরের রেকর্ড ভাঙল ইমরান সরকার, চরম দুরবস্থায় দেশের সাধারণ মানুষ

449
Imran khan

News Desk: এক নতুন রেকর্ড গড়লেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। মুদ্রাস্ফীতির ক্ষেত্রে ৭০ বছরের পুরনো রেকর্ড ভেঙেছে ইমরান সরকার। দেশে সব ধরনের খাদ্যশস্যের দাম দুই থেকে তিন গুণ বেড়েছে। পাশাপাশি বেড়েছে বিদ্যুৎ ও পেট্রোল, ডিজেলের দাম।

বিরোধীদের বরাবরের অভিযোগ, ইমরান সরকারের আমলে দেশের আর্থিক পরিকাঠামো ভেঙে পড়েছে। এতদিন প্রধানমন্ত্রী ইমরান নিজে এবং তাঁর দল বিরোধীদের সেই অভিযোগ অস্বীকার করে আসছিল। কিন্তু ফেডারেল ব্যুরো অব স্ট্যাটিস্টিকসের পক্ষ থেকে পরিষ্কার জানানো হল, মুদ্রাস্ফীতির ক্ষেত্রে ইমরান সরকার ৭০ বছরের পুরনো রেকর্ড ভেঙে নতুন রেকর্ড তৈরি করেছে।

ফেডারেল ব্যুরো অব স্ট্যাটিস্টিকসের এই রেকর্ড আরও একবার ইমরানের মুখ পুড়িয়ে ছাড়ল। পরিসংখ্যান থেকে জানা গিয়েছে, ইমরান সরকারের আমলে গত তিন বছরে নিত্যপ্রয়োজনীয় প্রতিটি জিনিসের দাম বেড়ে নতুন উচ্চতায় পৌঁছেছে। তিন বছর আগে এই দেশে এক ইউনিট বিদ্যুতের দাম ছিল ৪.০৬ টাকা। যা বেড়ে হয়েছে ৬.৩৮ টাকা। অর্থাৎ তিন বছরে বিদ্যুতের দাম বেড়েছে ৫৭ শতাংশ। প্রতি লিটার পেট্রোলের দাম ৯৪ টাকা থেকে বেড়ে হয়েছে ১৩৮.৭৩ টাকা। ১১.৬৭ কেজি গ্যাস সিলিন্ডারের দাম ১৫৩৬ টাকা থেকে বেড়ে হয়েছে ২৩২২ টাকা। এই তিন বছরে গ্যাসের দাম বেড়েছে ৫১ শতাংশ।

পাল্লা দিয়ে বেড়েছে প্রতিটি খাদ্য সামগ্রীর দাম। তিন বছরে চিনির দাম ৮৩ শতাংশ বেড়ে ৫৪ টাকা থেকে ১০০ টাকা হয়েছে। ঘি এর দাম বেড়েছে ১০৮ শতাংশ। প্রতি কেজি ময়দার দাম বেড়েছে ২০ টাকা। একইভাবে সবধরনের ডাল, চিনাবাদাম, ভোজ্য তেলের দামও বেড়েছে। এই মুহূর্তে মসুর ডালের দাম কেজি প্রতি ২০০ টাকা ছাড়িয়ে গিয়েছে। ২০০ টাকার আশপাশেই ঘোরাফেরা করছে ছোলা, মুগ, অড়হর ডালের দাম। পিছিয়ে নেই শাক-সবজির দামও। বেড়েছে সব ধরনের মাংস ও ডিমের দাম। তিন বছরে সব ধরনের মাংসের দাম ৪৫ থেকে ৫০ শতাংশ বেড়েছে।

দুর্নীতি দমন, নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের মূল্য হ্রাসের মতো একাধিক প্রতিশ্রুতি দিয়ে ক্ষমতা দখল করেছিলেন ইমরান খান। কিন্তু তিন বছরে ইমরান সরকারের আমলে পাকিস্তানের মানুষের হেঁশেলে কার্যত আগুন লেগেছে। যদিও সেই আগুনে রান্না হচ্ছে না। বরং রান্না বন্ধ হয়ে গিয়েছে। কারণ নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসগুলির এতটাই দাম বেড়েছে যে, সাধারণ মানুষের ধরাছোঁয়ার বাইরে চলে গিয়েছে।

মূল্যবৃদ্ধির জেরে ইমরান সরকার ইতিমধ্যেই তার জনপ্রিয়তা হারিয়েছে। এই মুহূর্তে দেশবাসী একটা সুযোগের অপেক্ষা করছেন। নির্বাচন এলেই ইমরান খানকে উপযুক্ত জবাব দেওয়া হবে বলে সেদেশের অনেকেই জানিয়েছেন।

এই মুহূর্তে ঘরে-বাইরে কোণঠাসা ইমরান সরকার। জঙ্গিদের আশ্রয় ও তাদের মদত দেওয়ার অভিযোগে এফএটিএফের ধূসর তালিকা থেকে এখনও বেরিয়ে আসতে পারেনি পাকিস্তান। ফলে তারা বিভিন্ন দেশের কাছ থেকে যে সাহায্য পেতে তা প্রায় বন্ধ হওয়ার মুখে। এরই মধ্যে দেশের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির ধাক্কায় ইমরান সরকার চরম সমস্যার মধ্যে পড়েছে। ঘরে-বাইরে এই পরিস্থিতি ইমরান কিভাবে সামলাবেন এখন সেটাই দেখার।