Syria: আমেরিকার ড্রোন হামলায় খতম আল কায়েদার শীর্ষ নেতা

481

নিউজ ডেস্ক: আমেরিকার ড্রোন হামলায় আল-কায়েদার অন্যতম শীর্ষ নেতা আবদুল হামিদ আল মাতার মৃত্যু হয়েছে।

সিরিয়ায় দু’দিন ধরে লাগাতার ড্রোন হামলা চালাচ্ছে আমেরিকা। উত্তর পশ্চিম সিরিয়ার ইদলিবে আল-কায়েদার গোপন ঘাঁটিতে সংগঠনের কয়েকজন শীর্ষ নেতা লুকিয়ে রয়েছে, এই খবর পাওয়ার পর সেখানে লাগাতার ড্রোন হামলা চালাতে শুরু করে মার্কিন বিমান বাহিনী। হামলায় শুক্রবার রাতে আল-কায়েদার শীর্ষ নেতা আবদুল হামিদের মৃত্যু হয়েছে। উত্তর পশ্চিম সিরিয়ার পাশাপাশি দক্ষিণ সিরিয়াতেও জঙ্গি ঘাঁটিগুলির উপর হামলা চালাতে শুরু করেছে আমেরিকা।

মার্কিন সেন্ট্রাল কম্যান্ডের মুখপাত্র সেনা মেজর জন রিগসবি জানিয়েছেন, উত্তর-পশ্চিম ও দক্ষিণ সিরিয়ায় এমকিউ-৯ বিমান থেকে ড্রোন হামলা চালানো হয়েছে। জখম হয়েছে লুকিয়ে থাকা আরও কয়েকজন জঙ্গি। তবে এই হামলায় সাধারণ মানুষের ক্ষয়ক্ষতির কোনও খবর নেই।

সেপ্টেম্বর মাসেও উত্তর-পশ্চিম সিরিয়ায় আল-কায়দার গোপন ঘাঁটিতে বিমান হামলা চালিয়েছিল আমেরিকা। ইদলিবের কাছে ওই বিমান হামলায় আল-কায়েদার শীর্ষ নেতা সালিম আবু আহমেদ খতম হয়েছিল। গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছিল আল-কায়েদার একাধিক গোপন ঘাঁটি ওই হামলার পর বেশ কিছুটা কোণঠাসা হয়ে পড়েছিল আল-কায়েদা।

শুক্রবার রাতের বিমান হামলায় ফের এক শীর্ষ আল-কায়েদা নেতার মৃত্যু হওয়ায় এই জঙ্গি সংগঠনটি বড় মাপের ধাক্কা খেল বলে মনে করা হচ্ছে। মধ্যপ্রাচ্যের গণ্ডি ছাড়িয়ে বিশ্বের অন্য দেশগুলিতেও আক্রমণ চালানোর কৌশল তৈরি করত আবদুল। জঙ্গি সংগঠনের জন্য অর্থ সংগ্রহ করতো সে। একই সঙ্গে তরুণ প্রজন্মকে জঙ্গিগোষ্ঠীতে এনে তাদের অস্ত্র প্রশিক্ষণ দেওয়ার কাজও করত সে। তাই আবদুলের মৃত্যুতে আল-কায়েদার বিশেষ ক্ষতি হল বলে মনে করা হচ্ছে।

সিরিয়ার ইদলিব প্রদেশ আমেরিকার বিমান হানা এই প্রথম নয়। এর আগে আইসিস জঙ্গি গোষ্ঠীর নেতা আবু বকর আল বাগদাদি যখন ইদলিবে লুকিয়ে ছিল সে সময়ও বিমান হানা চালিয়েছিল পেন্টাগন। আমেরিকার সেই বিমান হানায় বাগদাদির মৃত্যু হয়েছিল।