8.4 C
London
Sunday, February 5, 2023
HomeUncategorizedBangladesh: নাগাল্যান্ড ইস্যু টেনে মানবাধিকার লঙ্ঘন প্রশ্নে কূটনৈতিক চাপ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে

Latest Posts

Bangladesh: নাগাল্যান্ড ইস্যু টেনে মানবাধিকার লঙ্ঘন প্রশ্নে কূটনৈতিক চাপ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে

- Advertisement -

News Desk: বাংলাদেশে (Bangladesh) মানবাধিকার লঙ্ঘন ইস্যুতে এবার এসে পড়ল ভারতে সাম্প্রতিক ঘটে যাওয়া নাগাল্যান্ডে গুলিতে মৃত খনি শ্রমিকদের ঘটনা। জঙ্গি সন্দেহে অসম রাইফেলসের গুলিতে ১৫ জনের মৃত্যু হয়।

নাগাল্যান্ডের প্রসঙ্গ টেনে বাংলাদেশের প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সরকার নিষেধাজ্ঞা জারি করার আগে ভারতের পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে পারে। প্রতিবেশি দেশের নাগাল্যান্ড রাজ্যে কী ঘটেছে ও কেন ঘটেছে তার সদুত্তর সে দেশ থেকে চাক মার্কিন বিদেশ দফতর।

- Advertisement -

শুরু হয়ে গিয়েছে শেখ হাসিনা ও জো বাইডেন সরকারের মধ্যে ঠান্ডা লড়াই। ঢাকা-ওয়াশিংটন কূটনৈতিক সংঘাতে গরম আন্তর্জাতিক মানবাধিকার ইস্যু।

সম্প্রতি মার্কিন বিদেশ ও রাজস্ব দফতরের তরফে দাবি করা হয়, বাংলাদেশে মানবাধিকার লঙ্ঘিত করেছেন দেশটির অন্যতম নিরাপত্তা বাহিনী ব়্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়নের (RAB) একাধিক প্রাক্তন কর্মকর্তা। নাম প্রকাশ করে বাতিল করা হয়েছে বর্তমান পুলিশ প্রধান সহ ব়্যাব বাহিনীর মোট ৭ শীর্ষ প্রাক্তন কর্তার ভিসা। তারা এখন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে কোনওভাবেই প্রবেশ করতে পারবেন না বলেই জানানো হয়।

বাংলাদেশে তদন্তের নামে গুমখুন, অপহরণ করার ইস্যু নিয়ে দীর্ঘ সময় ধরে মানবাধিকার সংগঠনগুলি শেখ হাসিনার সরকারকে অভিযুক্ত করে আসছে। তবে সরকারের দাবি দেশে মানবাধিকার রক্ষা করা হয়।

মানবাধিকার লঙ্ঘন ইস্যুতে এবার মার্কিন নিষেধাজ্ঞা এসেছে বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জনের সুবর্ণ জয়ন্তী অনুষ্ঠানের আগেই। আগামী ১৬ ডিসেম্বর হবে এই অনুষ্ঠান। আসছেন ভারতের রাষ্ট্রপতি, ভুটানের রাষ্ট্রপ্রধান। এছাড়াও বিভিন্ন দেশের প্রতিনিধিরা আসছেন। এর মাঝে মার্কিনি নিষেধাজ্ঞার ধাক্কায় বিড়ম্বিত শেখ হাসিনার সরকার।

তীব্র প্রতিক্রিয়া দিয়েছে ঢাকা। বাংলাদেশের বিদেশমন্ত্রী ড.এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, র‌্যাব এবং এর কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা দুঃখজনক। যে কোনো অভিযোগ তথ্যভিত্তিক হওয়া উচিত। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকেও প্রতিবছর ৬ লাখ লোক নিখোঁজ হন।

শুধু প্রতিক্রিয়া নয়, বাংলাদেশ সরকারের তরফে ডেকে পাঠানো হয়েছে ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল মিলারকে। তার কাছে বাংলাদেশের অবস্থান স্পষ্ট করা হবে বলে জানানো হয়েছে। ঢাকার প্রতিক্রিয়া ওয়াশিংটনে পাঠানো হবে বলেই জানিয়েছেন রাষ্ট্রদূত।

ব়্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ন (র‍্যাব) বাহিনীর ভূমিকা বাংলাদেশ সহ বিভিন্ন দেশে আলোচিত। অপরাধ ও জঙ্গি দমনের পাশাপাশি নিরাপত্তায় মোতায়েন করা হয় এই সশস্ত্র বাহিনীকে। বিশেষ ক্ষেত্রে তদন্তে অংশ নেয় এই বাহিনী। বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল জানিয়েছেন, যাঁদের নামে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে, আমি তো মনে করি তাঁদের নামে নিষেধাজ্ঞা দেওয়াটা বস্তুনিষ্ঠ নয়। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সরকার বোধ হয় অতিরঞ্জিত কোনো খবর পেয়ে, সেটার ওপর ভিত্তি করে এটা করেছে।

মার্কিন নিষেধাজ্ঞায় যাদের নাম:
১. র‍্যাবের প্রাক্তন মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ। তিনি বর্তমানে বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি)।
২. ব়্যাবের বর্তমান মহাপরিচালক (ডিজি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন
৩. ব়্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশন্স) খান মহম্মদ আজাদ
৪. ব়্যাবের প্রাক্তনঅতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশন্স) তোফায়েল মোস্তাফা সরোয়ার
৫. ব়্যাবের প্রাক্তন অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশন্স) মহ. জাহাঙ্গীর আলম
৬. ব়্যাবের প্রাক্রন অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশন্স) মহ. আনোয়ার লতিফ খান।

- Advertisement -

Video News

Top News Headlines

Latest Posts

Don't Miss