গ্রাহকদের সুরক্ষা বাড়াতে বদলাচ্ছে Debit-credit card ব্যবহারের নিয়ম

382
Debit-credit card

নিউজ ডেস্ক, মুম্বই: বর্তমানে বহু মানুষই অনলাইনে কার্ডের মাধ্যমে কেনাকাটায় অভ্যস্ত হয়ে উঠেছেন। আগামী বছরের শুরু থেকেই ডেবিট ও ক্রেডিট কার্ড (Debit-credit card) ব্যবহারের নিয়ম বেশকিছু রদবদল আসছে।

বর্তমানে যে সমস্ত গ্রাহক নিয়মিত কোনও সংস্থা থেকে কার্ডের মাধ্যমে কেনাকাটা করেন তাঁদের কার্ড সংক্রান্ত তথ্য ওই সংস্থার কাছে মজুত থাকে। অত্যন্ত গোপনীয়তা ও সুরক্ষার সঙ্গেই কার্ডের বিস্তারিত তথ্য মজুত রাখা হয়। কিন্তু ২০২২ সালের জানুয়ারি (January) থেকে কোনও সংস্থাই আর গ্রাহকের কার্ডের বিবরণ নিজেদের কাছে সংরক্ষণ করতে পারবে না।

নতুন পদ্ধতি চালু হলে গ্রাহককেও ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ডের ১৬ অঙ্কের সংখ্যা মনে রাখতে হবে না। কেনাকাটার সময় কার্ডের নম্বর থেকে সিভিভি (cvd card) কার্ডের তথ্য দিতে হবে না। তার বদলে একটি টোকেন নম্বর (token number ) দিতে হবে। ওই টোকেন নম্বর দিয়েই মেটানো যাবে টাকা। নতুন ব্যবস্থা চালু হলে কোনও গ্রাহকের ব্যক্তিগত তথ্য চুরির ভয়ও একেবারেই থাকবে না।

২০২২- এর ১ জানুয়ারি থেকে এই নিয়ম চালু হয়ে গেলে কোন সংস্থা আর গ্রাহকদের কার্ডের নম্বর বা কোনও ব্যক্তিগত বিবরণ নিজেদের কাছে সংরক্ষিত রাখতে পারবে না। সাধারণত কেনাকাটা আরও সহজ ও দ্রুত করতে বিভিন্ন সংস্থা গ্রাহকদের কার্ডের বিস্তারিত বিবরণ নিজেদের কাছে সংরক্ষিত রাখে। এর ফলে সহজেই এবং দ্রুত গ্রাহকরা কেনাকাটার পর জিনিসের দাম মেটাতে পারেন। যদিও এর ফলে তথ্য চুরির একটা সম্ভাবনা থাকে। কিন্তু রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার নতুন নির্দেশে আর কোনও সংস্থাই গ্রাহকদের কার্ডের বিবরণ সংরক্ষিত রাখতে পারবে না। পরিবর্তে চালু হচ্ছে টোকেন ব্যবস্থা।

আরবিআই জানিয়েছে, কেনাকাটার সময় গ্রাহক তাঁর ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ডের বিস্তারিত তথ্য দেওয়ার পরিবর্তে একটি বিকল্প টোকেন নম্বর দেবেন। সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের পক্ষ থেকে গ্রাহকদের সেই টোকেন নম্বর দেওয়া হবে। প্রতিটি কার্ডের বিকল্প হিসেবে দেওয়া হবে আলাদা আলাদা টোকেন। যা দিয়ে আগের থেকেও সহজেই কেনাকাটা করতে পারবেন যে কোনও ব্যক্তি। কিন্তু কোনও সংস্থাই আর গ্রাহকের টোকেন নম্বরটি সংরক্ষণ করতে পারবেন না। আরবিআই জানিয়েছে, আগামী বছরের ১ জানুয়ারি থেকে কার্ড প্রদানকারী এবং কার্ড ব্যবহারকারী ছাড়া লেনদেনের সঙ্গে যুক্ত তৃতীয় কোনও সংস্থাই কার্ডের তথ্য আর নিজেদের কাছে সংরক্ষণ করতে পারবে না। যে সব সংস্থার কাছে আগে থেকে তথ্য সংরক্ষিত আছে তাদের যাবতীয় তথ্য জানুয়ারির আগেই মুছে ফেলতে হবে।

গ্রাহকরা কিভাবে এই টোকেন পাবেন সেটা সকলেই জানতে চান। এক্ষেত্রে রিজার্ভ ব্যাংক যে নির্দেশ দিয়েছে তাতে বলা হয়েছে, গ্রাহকরা কার্ড প্রদানকারী সংস্থা বা ব্যাংকের কাছে টোকেনের জন্য অনলাইনে অনুরোধ পাঠাতে পারবেন। টোকেনের মাধ্যমে কেনাকাটার বাকি নিয়ম অবশ্য আগের মতই থাকবে।