মা-হেমা মালিনীকে অন্য পুরুষের সঙ্গে অভিনয় করতে দেখাটা মেনে নিতে পারিনি: ঈশা

424
Esha deol

বায়োস্কোপ ডেস্ক: পাঁচ দশক কেটে গেছে, তবু ড্রিম গার্লের মুগ্ধতা ভুলতে পারেনি গোটা দেশ। একটা সময় ছিল যখন হেমা মালিনী একটার পর একটা সুপার হিট ছবি উপহার দিয়েছেন বলিউডকে। শোলে, ড্রিমগার্ল, সত্তে পে সাত্তা, নসিব, কিনারার মতো ছবিতে তিনি মুগ্ধ করেছেন সিনেমা প্রেমীদের। 

কেবল সিনেমায় জগতেই নয়, রাজনীতিতেও রীতিমতো দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন বলিউড অভিনত্রী। মেয়ে ইশা দেওলের কাছে তিনি ছিলেন কেবলই একজন ছাপোষা সংসারি নারী, যিনি কেবলই একজন মা। ইশা মন্তব্য করছেন যে মাকে অন্য অভিনেতাদের সাথে অভিনয় করতে দেখা তার কাছে মোটেই সহজ কাজ ছিল না।

এক সাক্ষাৎকারে ইশা দেওল তার মায়ের সাথে তার সম্পর্কের কথা ব্যক্ত করতে গিয়ে বলেছেন যে তিনি হেমা মালিনীকে একজন ছাপোষা পরিবারের গৃহবধূ, তার নাতি নাতনি – রধ্যা, মিরায়া, দৈরন ও অ্যাদিয়া আর অস্ত্রিয়ার ঠাকুমা বা দুই মেয়ের মা ছাড়া আর কোনো চরিত্রে ভাবতে পারিনা। তিনি এত বছর ধরে ভীষণ ভালোভাবে তার দায়িত্বগুলো পালন করেছেন আর আমাদের অনেক ভালোবাসা দিয়েছেন।

তিনি বলেছেন, “আমার ছোটবেলার দিনগুলো মনে পড়ে যখন মা শুটিংয়ের জন্য তৈরি হতেন। সকাল সকাল হেয়ার ড্রেসার থেকে মেকাপ-ম্যান পর্যন্ত মায়ের পিছন পিছন ঘুরে বেড়াতো শুটিংয়ের ব্যস্ততায়, আর আমি মায়ের রঙিন লিপস্টিকগুলোয় ডুবে থাকতাম, তারপর শেষমেষ ওগুলো ভেঙে ফেলতাম।” তিনি জানিয়েছেন, তারকা অভিনেত্রীর ব্যস্ত জীবন সমলেও মা হওয়ার সমস্ত দায়িত্ব পালন করতেন হেমা মালিনী। তিনি জানিয়েছেন যে ছোটবেলায় বেশ কিছু ছবির শুটিংয়ে হেমা মালিনির সাথে প্রায়শই সেটে যেতেন ইশা।

তিনি আরো দাবি করেছেন যে, তার মায়ের অভিনয় করা তার প্রিয় ছবি ‘সিতা আউর গীতা’। সেই প্রসঙ্গেই হেমা মালিনীর বড়ো মেয়ে বলেছেন যে, ছেলেবেলায় একজন নিতান্ত শিশু হিসেবে মাকে অন্য সহ অভিনেতাদের সাথে অভিনয় করতে দেখা তার জন্য বেশ কঠিন কাজ ছিল। এমনকি বাবা ধর্মেন্দ্রর সাথে অভিনয় করতে দেখেও তিনি বেশ বিচলিত হতেন। প্রসঙ্গত, ধর্মেন্দ্রর সাথে হেমা মালিনী মোট ২৮ টি ছবিতে একসাথে কাজ করেছেন।