Andhra Pradesh: বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৮, নিখোঁজ শতাধিক

362
andhra pradesh Flood

News Desk: বঙ্গোপসাগরের বুকে গভীর নিম্নচাপের (Depression) জেরে গত ৪৮ ঘন্টা ধরে একটানা প্রবল বৃষ্টি হয়ে চলেছে অন্ধপ্রদেশে। প্রবল বৃষ্টির কারণে শেষ ২৪ ঘন্টায় নতুন করে ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে ফলে এই রাজ্যে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৮। নিখোঁজ শতাধিক মানুষ। প্রশাসনের আশঙ্কা, নিখোঁজ থাকা বেশ কিছু মানুষকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করা সম্ভব নাও হতে পারে। সেক্ষেত্রে স্বাভাবিকভাবেই বাড়বে মৃতের সংখ্যা।

উল্লেখ্য বুধবার থেকেই তামিলনাড়ু (Tamilnadu) ও অন্ধ্রপ্রদেশে (Andhra pradesh) গভীর নিম্নচাপের প্রভাবে অতিভারী বৃষ্টি শুরু হয়েছে। এক টানা বৃষ্টিতে দুই রাজ্যের একাধিক জেলায় তৈরি হয়েছে বন্যা পরিস্থিতি। শনিবার রাজ্যের বন্যা পরিস্থিতি পরিদর্শন করেন অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী জগনমোহন রেড্ডি (Jaganmohan Reddy)।

জানা গিয়েছে তিরুমালা মন্দিরে শতাধিক পুণ্যার্থী বন্যার কারণে আটকে পড়েছেন। তিরুমালা মন্দির যাওয়ার চারটি রাস্তাই প্রবল বন্যার কারণে জলমগ্ন হয়ে পড়েছে। ফলে মন্দিরের যাওয়ার রাস্তা সম্পূর্ণ বন্ধ। ফলে পুণ্যার্থীরা মন্দিরের ভিতরে আটকে রয়েছেন। প্রশাসন এদিন ভার্চুয়াল ভগবান দর্শনও আপাতত বন্ধ রেখেছে। একই সঙ্গে আটকে পড়া পুণ্যার্থীদের বিনামূল্যে খাবার ও থাকার ব্যবস্থা করেছে তিরুমালা (Tirumala) তিরুপতি দেবস্থানাম কমিটি। তিরুমালার জাপানি অ্যাঞ্জেনিয়া স্বামীর মন্দিরেও জল ঢুকে গিয়েছে। এমনকী, দেবতার মূর্তি ও জলের তলায় চলে গিয়েছে বলে খবর।

andhra pradesh Flood

শনিবার সকালে প্রবল বৃষ্টির কারণে প্লাবিত হয়েছে বহুদা নদী। প্রবল জলের তোড়ে নদী বাঁধের একটি দেয়াল ভেঙে যায়। ফলে নদী সংলগ্ন এলাকায় হুহু করে জল ঢুকে পড়ে। প্রবল জলের স্রোতের কারণে ভেসে যায় একটি বাস। উদ্ধারকারীরা প্রায় পাঁচ ঘণ্টার চেষ্টায় ওই বাসের ২০ জন যাত্রীকে উদ্ধার করেন। তবে ওই বাসের ৮ যাত্রীর মৃত্যু হয়েছে। বেসরকারি সূত্রে খবর বাসের আরও চার যাত্রীর মৃতদেহ মিলেছে। তবে প্রশাসনের তরফ থেকে এ বিষয়ে কিছু জানানো হয়নি।

প্রবল বৃষ্টির কারণে আন্নামায়া বাঁধ প্রকল্পেরও বড় মাপের ক্ষতি হয়ে গিয়েছে। একটানা বর্ষণের কারণে তিরুপতির স্বর্ণমুখী নদীর জল ইতিমধ্যেই বিপদসীমার উপর দিয়ে বইছে। বাঁধগুলি থেকে জল উপচে পড়ছে। ইতিমধ্যেই অন্ধ্র ও তামিলনাড়ু দুই রাজ্যেই কয়েক হাজার বিঘা জমির ফসল নষ্ট হয়ে গিয়েছে। ভেসে গিয়েছে বেশ কিছু গবাদি পশু। অন্ধপ্রদেশে তিনটি এবং তামিলনাড়ুতে একটি বাসও ভেসে গিয়েছে।

অন্ধ্রের কাডাপ্পা জেলায় বন্যার কারণে ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। পার্শ্ববর্তী অনন্তপুর জেলায় ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। ইতিমধ্যেই ভারতীয় বায়ুসেনা উদ্ধার কাজ চালাচ্ছে। একই সঙ্গে রয়েছে জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীও। তিরুপতি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর সম্পূর্ণ জলবন্দি হয়ে পড়ায় উড়ান চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। মাত্রাতিরিক্ত বৃষ্টির কারণে ২৫ নভেম্বর পর্যন্ত কাডাপ্পা বিমানবন্দর বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি সড়ক ও রেল পরিবহণ ব্যবস্থা অত্যন্ত ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

বন্যায় সবথেকে বেশি ক্ষতি হয়েছে রায়ালসিমা অঞ্চলের। স্থানীয় প্রশাসন জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার থেকেই একটানা বৃষ্টি চলছে। এর ফলে চেয়েরু জলাধার সম্পূর্ণ প্লাবিত হয়ে গিয়েছে। অন্ধ্রের মুখ্যমন্ত্রী এদিন আকাশপথে রাজ্যের বিভিন্ন বন্যাদুর্গত এলাকা পরিদর্শন করেছেন। বন্যা পরিস্থিতি নিজের চোখে দেখার পর বিভিন্ন জেলার জেলাশাসক ও প্রশাসনিক কর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে করেন রেড্ডি। এই বৈঠক রাজ্যের বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করেন তিনি। উল্লেখ্য, ইতিমধ্যেই প্রধানমন্ত্রী রাজ্যের বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে অন্ধ্র ও তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে একদফা কথা বলেছেন। দুই রাজ্যকেই সব ধরনের সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছেন মোদি।

শনিবার সকালেও আবহাওয়া দফতর কোনও আশার কথা শোনায়নি। বরং জানিয়েছে, দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়া নিম্নচাপের শক্তি আরও বাড়ছে। ফলে আগামী ৪৮ ঘন্টা ভারি থেকে অতিভারী বৃষ্টি হবে। ইতিমধ্যেই তামিলনাড়ু ও অন্ধ্র প্রদেশের একাধিক জেলায় লাল সর্তকতা জারি করা হয়েছে।