Corona vaccine: করোনার টিকা বণ্টনে বাংলা বঞ্চিত হওয়ার অভিযোগ খারিজ কেন্দ্রের

346
Corona vaccine bengal

নিউজ ডেস্ক, নয়াদিল্লি: তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী তথা পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) একাধিকবার অভিযোগ করেছেন, টিকা বণ্টনের (Corona vaccine distribution) ক্ষেত্রে বৈষম্য করছে নরেন্দ্র মোদি সরকার (modi government)। বেছে বেছে বিজেপি শাসিত (bjp ruled state) রাজ্যগুলিতে পর্যাপ্ত ভ্যাকসিন পাঠানো হচ্ছে। বাংলাকে সেভাবে ভ্যাকসিন দেওয়া হচ্ছে না। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রীর করা অভিযোগ যে একেবারেই ভিত্তিহীন শুক্রবার সেটা রাজ্যসভায় জানিয়ে দিল কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক।

এদিন তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ সুস্মিতা দেবের এক প্রশ্নের উত্তরে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মনসুখ মান্ডব্য জানান, প্রাপ্ত টিকার নিরিখে তৃতীয় স্থানে রয়েছে বাংলা। বাংলার আগে প্রথম ও দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে যথাক্রমে উত্তরপ্রদেশ এবং মহারাষ্ট্র। মহারাষ্ট্র ক্ষমতায় আছে বিজেপি বিরোধী জোট। অর্থাৎ টিকা প্রাপ্তির নিরিখে দেখতে গেলে দেশের প্রথম তিনটি রাজ্যের মধ্যে দুটিই অবিজেপি শাসিত।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী এদিন যে পরিসংখ্যান দিয়েছেন তাতে দেখা যাচ্ছে, চলতি বছরের ২৬ নভেম্বর পর্যন্ত উত্তরপ্রদেশকে ১৮ কোটি ১২ লক্ষ ৬৯ হাজার ৬৬৫ ডোজ ভ্যাকসিন পাঠানো হয়েছে। মহারাষ্ট্রকে দেওয়া হয়েছে ১১ কোটি ৩১ লক্ষ ৫ হাজার ১৩০ ডোজ। তৃতীয় স্থানে থাকা পশ্চিমবঙ্গ পেয়েছে ৯ কোটি ৮১ লাখ ৫ হাজার ১৩০ ডোজ। বাংলার পর চতুর্থ স্থানে রয়েছে বিহার। পঞ্চম, ষষ্ঠ ও সপ্তম স্থানে রয়েছে যথাক্রমে মধ্যপ্রদেশ, গুজরাট এবং রাজস্থান।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পরিসংখ্যান বলছে, পশ্চিমবঙ্গে এখনও পর্যন্ত ৮৬.৬ শতাংশ মানুষ করোনার একটি ডোজ পেয়েছেন। দুটি ডোজ পেয়েছেন ৩৯.৪ শতাংশ মানুষ।

অন্যদিকে গোয়া এবং হিমাচল প্রদেশের ১০০ শতাংশ মানুষের প্রথম ডোজ হয়ে গিয়েছে। হিমাচল প্রদেশ দ্বিতীয় ডোজ পেয়েছেন ৯১.৯ শতাংশ মানুষ। অন্যদিকে গোয়ায় দ্বিতীয় ডোজ পেয়েছেন ৮৭.৯ শতাংশ মানুষ। অন্যদিকে নরেন্দ্র মোদির রাজ্য গুজরাতে প্রথম এবং দ্বিতীয় ডোজ পেয়েছেন যথাক্রমে ৯৩.৫ ও ৭০.৩ শতাংশ মানুষ। কেন্দ্রের এদিনের পেশ করা পরিসংখ্যান থেকে এটা স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে যে, টিকা বণ্টন নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে অভিযোগ করছেন তা আদৌ ঠিক নয়।